১৪ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

EN

রাস্তার ইট সলিং তুলে বাড়ি নিলেন ইউপি চেয়ারম্যান!

বার্তা সম্পাদক

প্রকাশিত: ৯:০৯ অপরাহ্ণ , ২০ সেপ্টেম্বর ২০২৩, বুধবার , পোষ্ট করা হয়েছে 10 months আগে

বিজয়নগ প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিজয়নগর উপজেলার ২নং চান্দুরা ইউনিয়নের সাতগাঁও এলাকায় সরকারি বরাদ্দের অর্থ দিয়ে সংস্কারকৃত ইট সলিং রাস্তার ইট উঠিয়ে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে চান্দুরা ইউপি চেয়ারম্যান এ এম শামিউল হক চৌধুরীর বিরুদ্ধে ।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে। অভিযোগপত্র প্রাপ্তির বিষয়টি স্বীকার করে ইউএনও ইরফান উদ্দিন আহমেদ জানান, বিষয়টি প্রাথমিক পর্যায়ে দেখার জন্য উপজেলা প্রকৌশলীকে বলা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

জানা গেছে, উপজেলার সাতগাঁও এলাকা চেয়ারম্যানের বাড়ি হতে সাতগাঁও গুচ্ছগ্রাম পর্যন্ত প্রায় ২ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য মাটি রাস্তাটি ইট সলিং ছিল। এরই মধ্যে ১৩শ মিটার রাস্তা এলজিইডির মাধ্যমে কার্পেটিং করা হয়েছে। রাস্তার বাকি ৭শ মিটার রাস্তার ইট সলিংয়ের ইট গুলো উঠিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান এ এম শামিউল হক চৌধুরী নিজ বাড়িতে নিয়ে স্টক করে রেখেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

আরো জানা গেছে, রাস্তাটি বিগত ২০২০-২১ অর্থবছরে ৩০০ মিটার ও ২০২২-২৩ অর্থবছরে ১ হাজার মিটার। দুই অর্থ বছরে রাস্তার এক তৃতীয়াংশ ইতিমধ্যে কার্পেটিং করা হয়েছে। বাকি একাংশের ইট তুলে নিয়ে গেছেন চেয়ারম্যান।

স্থানীয়দের অভিযোগ, ২০২১ইং সালে কার্পেটিং করার সময় পুরনো লক্ষাদিক রাস্তার সরকারি ইটও তারই বাড়িতে এনে নিজ ইচ্ছামত কংক্রিট করে বিভিন্ন ঠিকাদারদের কাছে বিক্রি করার অভিযোগ রয়েছে। চেয়ারম্যানের নিকট থেকে ইটের খোয়া ক্রয় করে স্থানীয় ঠিকাদাররা গ্রামের ভিতরে সরু রাস্তার ঢালাই এর কাজে ব্যবহার করেছেন। এছাড়াও স্থানীয় চেয়ারম্যান প্রভাবশালী হওয়ায় স্থানীয়রা এব্যাপারে ভয়ে মুখ খুলতে পাচ্ছে না।

এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান এ এম শামিউল হক চৌধুরীর মুঠোফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।

বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী মোহাম্মদ আশিকুর রহমান ভূঁইয়া ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, চেয়ারম্যানের বাড়িতে ইটগুলো আমরা পেয়েছি। ইট গুলো যথাস্থানে প্রতিস্থাপন করার জন্য জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

September 2023
M T W T F S S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
252627282930  
আরও পড়ুন