২৮শে নভেম্বর, ২০২২ ইং | ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

EN

বাবর লড়লেন কিন্তু পাকিস্তান থামল ১৮১–তে

বার্তা সম্পাদক

প্রকাশিত: ৪:০২ পূর্বাহ্ণ , ২৭ ডিসেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে

স্পোর্টস ডেস্ক : ডুয়ানে অলিভিয়েরের কৃতিত্বটা আসলে কিছুটা হলেও ঢাকা পড়ে গেছে ডেল স্টেইনের কারণে। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে টেস্টে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি হতে তাঁর দরকার ছিল মাত্র একটি উইকেট। সেটি তুলে নিতে সেঞ্চুরিয়নে এই ফাস্ট বোলার সময় নিয়েছেন মাত্র ১৯ বল। সপ্তম ওভারে একটি লেংথ বলে পাকিস্তানের ওপেনার ফখর জামানকে উইকেটের পেছনে ক্যাচ বানিয়েই স্টেইন নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেন রেকর্ড বইয়ে—টেস্টে সবচেয়ে বেশি উইকেট পাওয়া প্রোটিয়া বোলার এখন তিনিই।

এমন একটা মুহূর্তের কারণেই অলিভিয়ের একটু আড়ালে চলে গেছেন। নয়তো মাত্র ৩৭ রানে ৬ উইকেট নিয়ে পাকিস্তানের মূল সর্বনাশটা তো করেছেন এই ফাস্ট বোলারই। অলিভিয়েরের বলে ধুঁকে শেষ অবধি বাবর আজমের গুরুত্বপূর্ণ ৭১ রানে সেঞ্চুরিয়ন টেস্টের প্রথম ইনিংসে নিজেদের সংগ্রহটা কোনোমতে ১৮১-তে নিতে পেরেছে পাকিস্তান। বাবর ছাড়াও আজহার আলীর ৩৬, শান মাসুদের ১৯ আর হাসান আলীর অপরাজিত ২১ রানে স্কোরকার্ডে মোটামুটি একটা ভদ্রোচিত চেহারা দিতে পেরেছে তারা।
স্টেইন পেছনে ফেলেছেন শন পোলককে। ফখর জামানের উইকেটটি নিয়ে শন পোলককে পেছনে ফেললেন এই পেসার। ১০৮ টেস্টে ৪২১ উইকেট নিয়ে রেকর্ডটি গত এক দশক দখলে রেখেছিলেন পোলক। পূর্বসূরির চেয়ে ১৯ টেস্ট কম খেলেই রেকর্ডটি নিজের করে নিলেন ডেল স্টেইন (৮৯*তম টেস্ট)। সুপার স্পোর্ট পার্কের দর্শকেরা উঠে দাঁড়িয়ে সম্মান জানান সর্বকালের অন্যতম সেরা এই বোলারকে। শন পোলক রেকর্ড হাতছাড়া করেও খুশি। উত্তরসূরিকে অভিবাদন জানিয়েছেন এভাবে, ‘একজন অসাধারণ পারফরমার। আক্রমণভাগে সত্যিকারের নেতা।’ এবি ডি ভিলিয়ার্স টুইট করেছেন, ‘তোমাকে কুর্নিশ। একজন খেলোয়াড় বটে! সুপার স্পোর্ট পার্কে “সিম্পলি দ্য বেষ্ট” গানটির সমার্থক। এখানেই সব শুরু হয়েছিল। তোমাকে অভিবাদন কিংবদন্তি।’
ফখরকে স্টেইন তুলে নিলেও পাকিস্তানের পতন হওয়া প্রথম উইকেটটি ছিল ইমাম-উল-হকের। তাঁকে এলবির ফাঁদে ফেলে পাকিস্তানের সর্বনাশের শুরুটা করেন কাগিসো রাবাদা। এরপর ফখরকে স্টেইন তুলে নেন দলীয় ১৭ রানে। দেখতে দেখতেই ৮৬ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসে পাকিস্তান। অলিভিয়ের তুলে নেন শান মাসুদ, আসাদ শফিক ও আজহার আলীকে। এরপর অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ আর মোহাম্মদ আমিরকেও ফেরান অলিভিয়ের। এরপর হাসানের ক্ষণিকের প্রতিরোধ। পাকিস্তানের ইনিংসের লেজটাও মুড়ে দিয়েছেন অলিভিয়ের। তবে বাবর আজমকে ফিরিয়েছেন রাবাদা। ইয়াসির শাহও ওই রাবাদারই শিকার।
অলিভিয়েরের পাশাপাশি রাবাদা ৫৯ রানে নিয়েছেন ৩ উইকেট। স্টেইন তাঁর রেকর্ড গড়া উইকেটটি নিয়েছেন ৬৬ রান খরচে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

December 2018
M T W T F S S
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31  
আরও পড়ুন