১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

EN

অস্ত্র দিয়ে ফাঁসিয়ে মোটরসাইকেল চুরি, ওয়ারেন্ট নিয়ে প্রকাশ্যে ঘুরছে আ’লীগ নেতার ছেলে

বার্তা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১১:১৮ অপরাহ্ণ , ২৩ অক্টোবর ২০২২, রবিবার , পোষ্ট করা হয়েছে 2 years আগে

এনই আকন্ঞ্জি ,ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় প্রবাস ফেরত এক যুবকের মোটরসাইকেল চুরির মামলায় স্বপ্নীল সাইফুর রহমান ওরফে অপু গ্রেফতারী পরোয়ানা নিয়ে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। অপু ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুজিবুর রহমান বাবুল ও সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শামীমা আক্তারের ছেলে। গত ৩১ আগস্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত স্বপ্নীল ও তার সহযোগী আশরাফুল ইসলাম অয়ন ওরফে পাভেলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেন।

মামলার এজহার ও আদালত সূত্রে জানা যায়, জেলা শহরের পূর্ব মেড্ডা এলাকার মৃত কুতুবুর রহমানের ছেলে সজিব মিয়া দীর্ঘ ১৫/১৬ বছর সৌদি আরবে প্রবাসী ছিলেন। ২০২০ সালের আগষ্টে দেশে ছুটিতে আসলে করোনার মহামারীর কারণে তিনি আর সৌদিতে ফিরে যেতে পারেননি। এরই মাঝে স্বপ্নীল সাইফুর রহমান ওরফে অপুর সাথে সজিবের বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে উঠে। অপু কাজীপাড়ার বাসিন্দা হলেও পাইকপাড়ায় রাজ ভবনের পরিবারের সাথে ভাড়া বাসায় বসবাস করেন। চলতি বছরের ১৪ এপ্রিল রাতে অপুর পাইকপাড়া বাসায় পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে সজীব’কে নিয়ে যায়। এসময় অপু তার কাজ আছে বলে বাসা থেকে বের হয়ে গেইটের কাছে আসলে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সজিবকে আটকের চেষ্টা করে। এসময় অপু ও তার সাথে থাকা আরও দুইজন কিল-ঘুষি মেরে আহত করে সজিবের প্যান্টের পকেটে থাকা মোটরসাইকেলের চাবি ছিনিয়ে নিয়ে যায়৷ সজিবকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে হস্তান্তর করে তারা। পরে জানা যায়, সজিবকে একটি বিদেশি পিস্তল ও ম্যাগাজিন সহ গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এসময় মোটরসাইকেলটি চুরি করে নিয়ে যায় অপু। যা ঘটনাস্থলের সিসি টিভি ক্যামেরার ফুটেজে প্রমাণ পাওয়া যায়। এই ঘটনায় সজিবের স্ত্রী সুমাইয়া আক্তার রিমা গত ২৮ এপ্রিল স্বপ্নীল সাইফুর রহমান সহ আরও অজ্ঞাত দুইজনকে আসামী করে আদালতে মামলা দায়ের করেন। আদালত মামলাটি তদন্ত করে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে প্রতিবেদন দাখিল করতে আদেশ দেন। তদন্তকালে সজিবের মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করে জব্দ করে পুলিশ। এরই মাঝে এলাকাবাসী অপু’র প্রধান সহযোগী আশরাফুল ইসলাম অয়ন ওরফে পাভেল’কে আটক করে। এসময় পাভেল স্ব-প্রনোদিত হয়ে ভিডিও বক্তব্যে জানায়, ‘পাভেলের একটি মোটরসাইকেল অপু আটক করে রেখেছে। অপু’র সাথে যদি সজিবের মোটরসাইকেলটি নিতে সাহায্য করে তাহলে পাভেলের মোটরসাইকেলটি ফেরত দিয়ে দিবে অপু। তাই ঘটনার দিন সজিবের মোটরসাইকেলের চাবি দিলে চালিয়ে নিয়ে যায় পাভেল।’ তদন্তে মোটরসাইকেল চুরির বিষয়ে সত্যতা পাওয়ার কথা উল্লেখ্য করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন পুলিশ। ঘটনাস্থলের ভিডিও, পাভেলের দেওয়া জবানবন্দির ভিডিও এবং উদ্ধার হওয়া মোটরসাইকেলটিও জব্দ তালিকায় আদালতে জমা দেন।

পরে আদালত এই মামলায় স্বপ্নীল সাইফুর রহমান ওরফে অপু ও তার সহযোগী আশরাফুল ইসলাম অয়ন ওরফে পাভেলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করে। গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করলেও গত দুই মাসেও গ্রেফতার করা যায়নি অপু ও তার সহযোগীকে।

মামলার বাদি সজিবের স্ত্রী সুমাইয়া আক্তার রিমা বলেন, ‘কয়েকদিন আগে আমরা নিজেরা আটক ৯৯৯’এ কল দিয়েছিলাম। কিন্তু পুলিশ আসার আগেই অপু’কে ছিনিয়ে নিয়ে যায় তার বাবা-মা। তাকে দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানাই।’

এ বিষয়ে গ্রেফতারী পরোয়ানা তামিলের দায়িত্বে থাকা সদর মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ইব্রাহীম আকন্দ জানান, ‘অপু ও তার সহযোগী পাভেলের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা রয়েছে। তাদেরকে আমরা গ্রেফতারের চেষ্টা করছি। আশা করছি অচিরেই তাদের গ্রেফতার করতে পারবো।’

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

October 2022
M T W T F S S
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31  
আরও পড়ুন