২রা আগস্ট, ২০২১ ইং | ১৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

EN

মানুষ এবং তার মন… এইচ এম সিরাজ

বার্তা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১১:৩৪ অপরাহ্ণ , ১৬ জুন ২০২১, বুধবার , পোষ্ট করা হয়েছে 2 months আগে

স্রষ্টার অনুপম এক সৃষ্টি হচ্ছে মানুষ।জাগতিক জগতের সকলকিছু কেবল মানুষের কল্যাণে। ইসলামী পরিভাষা অনুযায়ী বলতে গেলে, মানুষ আশরাফুল মাখলুকাত। আল্লাহ্ তা’আলা আঠার হাজার মাখলুকাতকে সৃষ্টি করেছেন। মানুষ তার মধ্যে একটি এবং শ্রেষ্ঠতরটিই। এই মানুষ ব্যাতীত বাকি ১৭ হাজার ৯৯৯ মাখলুকাত কোনো না কোনোভাবে মানুষের পরাভবাধীন এবং তাদের প্রভুর নির্দেশনাতেই তারা মানব কল্যাণে নিরত। মানুষের শ্রেষ্ঠত্ব কেবল তাদের মনুষত্ববোধের কারণেই। সহজ কথায় আমরা যেমন ‘মন আছে বলেই মানুষ’ এই কথাটি বলে থাকি। সাধারণ মানুষ কথায় কথায় বলে থাকেন, ‘মসজিদ ভাঙলে জোড়া লাগানো যায় কিন্তু মন ভাঙলে জোড়া লাগানো যায়না’। অর্থাৎ মনের গুরুত্ব স্বভাবতই অত্যধিক। কিন্তু আমরা বাস্তবতায় মনের কদর করি কতোখানি?

আমরা প্রায় সবাই শারিরিক, পারিবারিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক ভালো-মন্দ দিকটাকেই সদা-সর্বদায় গুরুত্ব দিয়ে থাকি। কদ্যপিও মানসিক দিকটাকে বিবেচনায় আনতে চাই না। অথচ এটাই প্রত্যেকটা মানুষের একান্ত নিজস্ব বিষয়, সেটিকেই আমরা পাত্তা দেই না। যেমন খড়ের গাদায় সুঁই খোঁজার প্রচেষ্টারত থেকে সময় করে দিই পার। ক্ষণে আমরা শারিরিক দিকটাকেই মানসিক, কদাচ পারিবারিক বিষয়কে মানসিক জ্ঞান করি, কভুও সামাজিককেই মানসিক, আবার কখনওবা অর্থনৈতিক দিকটাকেই মানসিক জ্ঞান করে একাকার করে ফেলি। অথচ দিনশেষে এসব কদ্যপিও মানসিক নয় বিধায়, নিজের মনের সামান্য ক্ষতটাই কৃষ্ণগহ্বরে রূপ নেয়; গোটা জীবনই তখন আফসোসের বলে আনমনে ভাবতে থাকি। আমি একজন মানুষ, আমার একটা মন আছে, মনের একটা প্রশান্তি থাকতে পারে-আছে এটা একবারের জন্যও ভাবনায় না নিয়ে ঐ যে শারিরিক, পারিবারিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক দিকের পেছনে মনের ঘোড়াকে অবিরাম দৌড় করাতে করাতে করাতে ক্লান্ত-পরিশ্রান্ত হয়ে উট পাখির ন্যায় বালির নিচে মুখ লুকাই।
লেখক- এইচ এম সিরাজ
কবি সাংবাদিক ও গবেষক

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

আরও পড়ুন