৬ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ ইং | ২৪শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

EN

আবার তোরা মানুষ হো – – –

বার্তা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১১:৫৭ পূর্বাহ্ণ , ১১ এপ্রিল ২০২০, শনিবার , পোষ্ট করা হয়েছে 3 years আগে

ঘাতক করোনার আক্রমণে পৃথিবীর সেরা পরা শক্তিধর দেশ গুলোতে প্রতি ক্ষণে ক্ষণে মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতম হচ্ছে। অদৃশ্য এক মহা শক্তি তামাম দুনিয়াকে থমকে দিয়েছে। সমস্ত শক্তিকে পরাস্ত করে সে ৮ শ কোটি মানুষকে গৃহ বন্দী করেছে। রাজা মহারাজা,বিজ্ঞানী সবাই মৃত্যুর প্রহর গুনছে। যুদ্ধের ময়দানে অস্ত্র দিয়ে শত্রুর মোকাবেলা করা যায়।কিন্তু অাজ অামাদের লড়ায় এক অদৃশ্য মহা শক্তির বিরুদ্ধে। তাই অামাদের গেরিলা যুদ্ধ করতে হচ্ছে। যে যুদ্ধে জয় লাভের জন্য ভারী কামান বা মারণাস্ত্রের প্রয়োজন নেই, রণ কৌশলও জানার দরকার নেই। ডাক্তার,নার্স, পুলিশ, সেনাবাহিনী,ছাত্র, যুবক, সমাজ সেবক অামরা কি বিদেশে থেকে এনেছি (?) তাঁরা অামাদেরই গর্বিত সন্তান। তাঁরা জীবনের চরম ঝুঁকি নিয়ে হাসপাতাল ও রাস্তায় দাঁড়িয়ে অবিরত বলছে অাপনারা সাবান অার গরম পানি নিয়ে ঘরে থাকুন অামরা নিরাপত্তা দিবো। কিন্তু অামরা মানছি না। নানান অজুহাতে মাস্ক ছাড়াই সামাজিক দুরত্ব ও স্বাস্থ্য বিধি লঙ্ঘন করে বিনা প্রয়োজনে ঘুরছি, চায়ের দোকানে অাড্ডা দিচ্ছি।
সাড়ে সাত কোটি মানুষের জন্য ত্রিশ লক্ষ বীর মুক্তি যোদ্ধা জীবন উৎসর্গ করেছে। অাঠারো কোটি মানুষের জন্য কতো সৈন্য অামরা প্রস্তুত করেছি(?) এ যুদ্ধের ময়দানে কতো লক্ষ ডাক্তার ও নার্স অামাদের রয়েছে(?)
“৭১এর যুদ্ধের ময়দানে আপনি হারিয়েছেন এক জন বাবা,ছেলে বা ভাই। কিন্তু অাজকের এই যুদ্ধের ময়দান থেকে যখন অামাদের এই প্রিয় যোদ্ধারা দিন শেষে ঘরে ফিরে তখন অাপন বাবা মা, স্ত্রী, সন্তান ভাই বোন,পাড়া প্রতিবেশী সবাই অাতঙ্কে থাকে, না জানি তাঁর শরীরে ঐ ঘাতক রয়েছে। জীবনের এই চরম ঝুঁকি নিয়ে তাঁরা অার কতো অামাদেরকে তাড়া করে চলবে (?)। তাঁদেরও তো লজ্জা করে।
আমরা জানি চীনের উহানে এই করোনা’র জন্ম। তাঁরা মাত্র ৭০ দিন লকডাউনে ছিল। এখন তাঁরা অাবার জীবনের সেই অাগের শক্তিতে অানন্দ, উচ্ছ্বাস নিয়ে কর্ম ব্যস্থ হয়েছে।
শেষটাই বলি অামরা অামাদের প্রতিপালকের সৃষ্টির উপর অনেক অন্যায় করেছি, তার কৃত কর্ম অাজকের এই বিপন্ন দুনিয়া।
তাই বড় পরিতাপেই বলছি #”অাবার_তোরা_মানুষ_হো” ঘরে থাক, নিরাপদে থাক #ইনশাআল্লাহ_সুস্থ্য_থাকবে।
লেখক- এমদাদুল হক

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

আরও পড়ুন