৭ই অক্টোবর, ২০২২ ইং | ২২শে আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

EN

==== ছাত্র রাজনীতি বন্ধের দাবি ও আমার দুটি কথা ====বাহারুল ইসলাম মোল্লা

বার্তা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১১:৩৩ অপরাহ্ণ , ১৪ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার , পোষ্ট করা হয়েছে 3 years আগে

  1. সম্প্রতি বুয়েটের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার পর শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করেছে বুয়েট কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনার পর কেউ কেউ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবি জানিয়েছেন। শিক্ষাঙ্গনে ছাত্র রাজনীতি থাকা ও না থাকার যৌক্তিকতা নিয়ে গণমাধ্যমে অনেকেই অনেক ধরনের মন্তব্য করেছেন।
    আবরাব ফাহাদ হত্যাকান্ড নিঃসন্দেহে একটি নিন্দনীয় ও জঘন্য ঘটনা। আমি হত্যাকান্ডে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাই। আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডে আমি খুবই ব্যথিত। একজন পিতা হিসেবে আমি এই হত্যাকান্ড কোন ভাবেই মেনে নিতে পারছিনা। তবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কথায় আমি আশার আলো দেখতে পাচ্ছি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, তিনি মায়ের ভূমিকা নিয়ে এই হত্যাকান্ডের বিচার করবেন। আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডের ২৪ ঘন্টার মধ্যেই ১৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তাদের কয়েকজনকে রিমান্ডে নেয়া হয়েছে। অন্যদেরকেও গ্রেপ্তারের সর্বোচ্চ চেষ্টা চলছে। আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কথায় আস্থা রাখতে চাই।
    আবরাব হত্যাকান্ডের পর যারা শিক্ষাঙ্গনে ছাত্র রাজনীতি বন্ধের দাবি জানিয়েছেন আমি তাদের সাথে দ্বিমত পোষন করি।
    পৃথিবীর বিভিন্ন দেশেই ছাত্র রাজনীতি আছে। ছাত্র সংসদ আছে। তাহলে আমাদের দেশে কেন ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করতে হবে? মাথা ব্যাথা হলে, মাথা কেটে ফেলাতো কোন সমাধান হতে পারেনা। আমাদের দেশের প্রবীণ রাজনীতিবিদদের অধিকাংশইতো ছাত্র রাজনীতির ফসল।
    ৫২ এর ভাষা আন্দোলন, মহান মুক্তিযুদ্ধ, ৯০ এর স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনসহ দেশের প্রতিটি গনতান্ত্রিক আন্দোলনেই রয়েছে আমাদের ছাত্র সমাজের গৌবরোজ্জ্বল ভূমিকা। তাহলে ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করতে হবে কেন?
    ছাত্র রাজনীতি বন্ধ না করে ছাত্র রাজনীতিকে শুদ্ধ করতে হবে। ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ নয়, অপরাজনীতি বন্ধ করতে হবে। ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করা হলে মৌলবাদী সংগঠনগুলো এর সুযোগ নিবে। এক সময় জাতীয় রাজনীতিতে তার প্রভাব পড়বে,এক সময় দেশ হয়ে পড়বে নেতৃত্বশূন্য। ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করলেই সমস্যার সমাধান হবেনা। ছাত্র রাজনীতি বন্ধ না করে ছাত্র রাজনীতিকে করতে হবে স্বচ্ছ, সুন্দর এবং নৈতিক। ছাত্র রাজনীতিকে মাস্তানমুক্ত করতে হবে, ছাত্র রাজনীতিতে বন্ধ করতে হবে পেশিশক্তি।
    দেশের প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজে ছাত্র সংসদ নির্বাচন দিয়ে ছাত্রদেরকে রাজনীতি চর্চার সুযোগ করে দিতে হবে। ছাত্র রাজনীতি নয়, বন্ধ করতে হবে হত্যার রাজনীতি।
    শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হত্যার রাজনীতি বন্ধ করতে হবে। ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধ করা হলে মৌলবাদীরা সুযোগ নেবে। অন্ধকারের কুশীলিবরা দেশে অরাজকতার সৃষ্টি করবে। তাই ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ করার পক্ষে আমি নই। তবে শিক্ষাঙ্গনে অপরাজনীতি ও হত্যার রাজনীতি বন্ধ করার দাবি জানাই। শিক্ষাঙ্গনে যারা অপরাজনীতি করবে তাদেরকে চিহ্নিত করে দল থেকে বহিষ্কারসহ তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। শিক্ষাঙ্গনে সন্ত্রাস ও দখলদারিত্ব বন্ধ করতে হবে। ছাত্ররাজনীতি বন্ধ করা কোনো সমাধান নয়। ছাত্র রাজনীতি রেখে এর সমস্যা গুলোর সমাধান করতে হবে। সংগৃৃহীত বাহার মোল্লা
    ###

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

October 2019
M T W T F S S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  
আরও পড়ুন