২৮শে নভেম্বর, ২০২২ ইং | ১৩ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

EN

সাংবাদিক সুবর্ণা নদী হত্যা, সাবেক শ্বশুর রিমান্ডে

বার্তা সম্পাদক

প্রকাশিত: ২:১২ অপরাহ্ণ , ৩১ আগস্ট ২০১৮, শুক্রবার , পোষ্ট করা হয়েছে 4 years আগে

নিজস্ব প্রতিনিধি : পাবনার নারী সাংবাদিক সুবর্ণা নদী (৩২) হত্যা মামলায় তাঁর সাবেক শ্বশুর শিল্পপতি আবুল হোসেনকে তিন দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে পাবনার মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালত-১-এ হাজির করে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হয়। বিচারক মো. রাশেদ হোসেন তিন দিন রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিকে ঘটনার ২ দিন পার হলেও মূল আসামি ও সুবর্ণার সাবেক স্বামীকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। পুলিশের দাবি, তিনি পলাতক।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিদর্শক অরবিন্দ সরকার জানান, গ্রেপ্তারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আবুল হোসেন কিছু স্বীকার করেননি। ফলে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সকালে তাঁকে আদালতে হাজির করে সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

২ দিন পার হয়ে গেলেও মামলার প্রধান অভিযুক্ত সুবর্ণার সাবেক স্বামী রাজীব হোসেনকে পুলিশ এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি। হত্যা বিষয়ে কোনো তথ্য প্রকাশ করেনি পুলিশ। এতে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সুবর্ণার পরিবার।

সুবর্ণার মা মর্জিনা বেগম বৃহস্পতিবার বলেন, ‘যাগের জন্যি আমার মিয়ের জীবন গেল, তারা পলায়া থাকে কীভাবে। তাগের আমি ফাঁসি চাই।’

এ প্রসঙ্গে পাবনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস বলেন, মামলার সব আসামিকে ধরতে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। রাজীব হোসেন পালাতক থাকায় তাঁকে ধরতে একটু সময় লাগছে। তবে আশা করছি, শিগগরিই তাঁকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

সুবর্ণা নদী বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল আনন্দ টিভির পাবনা প্রতিনিধি ছিলেন। তিনি পাবনা জেলা শহরের রাধানগর আলিয়া মাদ্রাসা এলাকার একটি ভাড়া বাড়িতে থাকতেন। মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে জেলা শহর থেকে গিয়ে বাড়িতে ঢুকছিলেন। বাড়ির প্রধান ফটকে মোটরসাইকেলে আসা কয়েকজন দুর্বৃত্ত তাঁকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে পালিয়ে যায়। আহত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হলে তিনি মারা যান। ঘটনার পরদিন সুবর্ণার মা মর্জিনা বেগম বাদী হয়ে সাবেক শ্বশুর, স্বামী ও আরও তিনজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত চার-পাঁচজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেছেন। মামলার পর পুলিশ আবুল হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

August 2018
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  
আরও পড়ুন