২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ ইং | ১৪ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

EN

তবুও ফুরফুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশ!

বার্তা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১:১৫ পূর্বাহ্ণ , ৭ মে ২০১৮, সোমবার , পোষ্ট করা হয়েছে 5 years আগে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি: হঠাৎ করেই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় বেড়েছে হত্যাকাণ্ড। দিন-দিন দীর্ঘ হচ্ছে মরদেহের মিছিল। পুরুষের পাশাপাশি নারী-শিশুও যুক্ত হচ্ছে এ মিছিলে। একটার পর একটা হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জেলার নাগরিকরা যখন চরম উদ্বিগ্ন ঠিক তখনই অনেকটা ফুরফুরে জেলা পুলিশ! সর্বশেষ বুধবার (২ মে) টয়লেট থেকে নিখোঁজ শিশু রিয়া আক্তারের মরদেহ উদ্ধারের পরও বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে রাত পর্যন্ত গান-বজনায় মত্ত ছিলেন পুলিশের শীর্ষ কর্তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২ এপ্রিল থেকে ২ মে পর্যন্ত জেলার সদর উপজেলা, আখাউড়া, কসবা, বিজয়নগর ও নাসিরনগর উপজেলা থেকে ১১টি মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এর মধ্যে দুইজন কিশোর, এক নবজাতকসহ দুই শিশু, তিনজন নারী এবং চারজন পুরুষ। এদের মধ্যে কারো মরদেহ মিলেছে নদীতে, কারো ডোবায়, কারো ডাস্টবিনে কারো আবার টয়লেটে। দু’চারজনের মরদেহ শনাক্ত করা গেলেও অনেকরই পরিচয় এখনো মেলেনি।

এছাড়া গত বৃহস্পতিবারও জেলার বাঞ্ছারামপুর উপজেলায় প্রতিপক্ষের হামলায় এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। একটার পর একটা হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জনমনে উদ্বেগ বাড়লেও টনক নড়ছে না পুলিশের।

এদিকে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জেলার পুলিশ সুপারের সরকারি বাসভবনে আয়োজন করা বৈশাখী উৎসবের। উৎসবে আগত অতিথিদের মনোরঞ্জনে ছিল গান-বাজনাসহ ব্যপক আয়োজন। রাত ১১টা পর্যন্ত চলে এ গান-বাজনা। এতে উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক রেজওয়ানুর রহমান, পুলিশ সুপার মো. আনোয়ার হোসেন খান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার মেয়র নায়ার কবির, জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. ইকবাল হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. রেজাউল কবিরসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতারা। তবে জেলা পুলিশের এমন কর্মকাণ্ডে হতাশা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নাগরিক সংগঠনের নেতারা।

জেলা নাগরিক ফোরামের সহ-সভাপতি আতাউর রহমান শাহীন বলেন, পুলিশ অপরাধ নিয়ন্ত্রণে উদাসীন হয়ে পড়েছে। একটার পর একটা হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জেলাবাসী উদ্বিগ্ন। এমন সময় পুলিশের গান-বাজনার আয়োজন জানান দেয় নৈতিকতার অবক্ষয়ের কথা। এ অবক্ষয় পুলিশেও বিস্তৃত হয়েছে।

এ ব্যাপরে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. ইকবাল হোসেন বলেন, আমাদের কোনো উৎসব ছিল না। সুশীল সমাজের সঙ্গে পরিচিতি সভা ছিল। সভার পর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও খাওয়া-দাওয়া পর্ব ছিল।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

May 2018
M T W T F S S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  
আরও পড়ুন