২৭শে জানুয়ারি, ২০২৩ ইং | ১৪ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

EN

আপনারা নিজেকে রক্ষা করুন একইসাথে দেশের সুনাম অক্ষুন্ন রাখুন : রাষ্ট্রদূত

জহির রায়হান

প্রকাশিত: ১১:১৮ পূর্বাহ্ণ , ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, সোমবার , পোষ্ট করা হয়েছে 5 years আগে

লেবানন থেকে জহির রায়হান : বাংলাদেশ সরকারের নিযুক্ত লেবাননে বাংলাদেশ দূতাবাসের মান্যবর রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার বলেন, এইচআইভি এইডস একটি মারাত্মক ব্যাধি। এ রোগের চিকিৎসা নেই। সম্প্রতি গত কিছুদিন পূর্বে কয়েকজন মুমূর্ষু রোগীর চিকিৎসায় ৩ জনের এইচআইভি এইডস রোগ ধরা পরেছে। এটি প্রথমে স্বামী-স্ত্রী, ছেলে সন্তান ও পরিবারের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলেও পরে খুব দ্রুত অন্যত্র ছড়িয়ে পরে।

আপনারা যারা প্রবাসে অবাদ মেলামেশা বা অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িত আছেন আপনাদের কাছে বিনীত অনুরোধ এটা বর্জন করুন এ পথ থেকে সড়ে আসুন। আপনারা নিজেকে রক্ষা করুন একইসাথে দেশের সুনাম অক্ষুণ্ণ রাখুন। গতকাল রবিবার বিকালে বৈরুত, জুনির জ্বালা এলাকার অভিজাত বাংলোর একটি আন্ডারগ্রাউন্ড হলে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ও পুনর্বাসন সোসাইটি আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে রাষ্ট্রদূত বলেন, বছর ঘুরে আবারও আমাদের মাঝে হাজির হয়েছে মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে পরম শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি সেইসব বীর শহীদদের, যাঁদের চরম আত্মত্যাগের বিনিময়ে আমরা পেয়েছিলাম আমাদের মায়ের ভাষায় কথা বলার অধিকার। সেইসাথে আরো শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানকে। তিনি বলেন, এই দিনটি আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের দিন, আনন্দের দিন, ঐতিহাসিক দিন।

প্রবাসীদের জন্য সুখবর বার্তা নিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, গত কিছুদিন পূর্বে বাংলাদেশের প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী লেবাননে এসেছিলেন। সেসময় মন্ত্রী মহোদয়ের সাথে এদেশে বাংলাদেশী দালালদের দৌরাত্ম্য ও আপনাদের অভিযোগ নিয়ে আলোচনা করেছিলাম। বর্তমানে দালালদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে মন্ত্রণালয়ের লিখিত অনুমতিপত্র দূতাবাসে এসে পৌঁছেছে। অতএব দালালদের আর ছাড় নয়, এদেরকে শক্ত হাতে দমন করা হবে। এটা আপনাদের জন্য একটি সুখবর।

এছাড়া তিঁনি আরো বলেন, লেবাননে অবৈধভাবে বসবাসকারী ৪ হাজার ২ শত জন প্রবাসীকে বিনা জরিমানায় বাংলাদেশে প্রত্যাবাসন করা হচ্ছে। জরিমানা দিয়ে দেশে গেলে জনপ্রতি ২১শত মাকির্ন ডলার খরচ হত। বিনা জরিমানায় ৪হাজার ২শত জন অবৈধ প্রবাসীকে দেশে পাঠিয়ে ৬মিলিয়ন ডলার যা বাংলাদেশী মুদ্রায় ৪০০কেটি টাকা সরকারের রাজস্ব ভান্ডারে যোগ করতে সক্ষম হয়েছি। ইতিমধ্যে অধিকাংশ অবৈধ প্রবাসীদের দেশে প্রত্যাবাসন করা হয়েছে। আর যাদের ক্লিয়ারেন্স এখনও পাওয়া যায়নি ঘাবড়ে যাবার কিছু নেই। আগামী ২মাসের মধ্যে সবকিছু ঠিকঠাক করে তাদেরকেও আমরা বিনা জরিমানায় দেশে পাঠাবো।

এসময় তিঁনি বলেন, সেইসাথে যাদের আকামা সমস্যা আছে আমরা সেগুলো নিয়েও কাজ করছি। পাশাপাশি লেবাননে যারা অবৈধভাবে বসবাস করছেন তাদের লিগ্যালাইজ করতে বিভিন দপ্তরে একাধিকবার মিটিং করছি। আশাকরি দূতাবাসের মাধ্যমে অচিরই আপনারা এই সুযোগটা গ্রহণ করতে পারবেন।

রাষ্ট্রদূত বলেন, আমার সাধ আছে সাধ্য নেই। আপনাদের বিভিন্ন অভিযোগ অথবা সমস্যাদি তাৎক্ষুনিকভাবে আমরা সমধান দিতে পারিনা। এর মূলে হল আমাদের জনবল সংকট। কারণ দূতাবাসে যে কয়জন কর্মকর্তা রয়েছেন তারা যথেষ্ট নয় বরো কর্মকর্তার প্রয়োজন। আপনাদের ১ লক্ষ ৬০ হাজার প্রবাসীদের সমস্যা সমাধান করতে একটু সময়তো লাগবেই। আপনারা দূতাবাসের উপর আস্তা রাখুন কেউ নিরাশ হবেন না। আপনাদের জন্যই দূতাবাস, আপনাদের যেকোনো সমস্যা সমাধানের লক্ষে দূতাবাস কাজ করে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠান শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত ও জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। পরে অনুষ্ঠানের আয়োজকদের নির্মিত অস্থায়ী শহীদ মিনারের বেদিতে রাষ্ট্রদূত পুষ্পস্তবক অর্পণ করে ভাষা শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপণ করেন। এসময় মহান ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রধান অতিথিকে একটি ক্রেস্ট উপহার দেওয়া হয়। পরে অনুষ্ঠানে বীর মুক্তিযোদ্ধা দোলা মিয়ার হাতে মুক্তিযুদ্ধের সনদ তুলে দেন রাষ্ট্রদূত।

সংগঠনের সভাপতি সৈয়দ আমির হোসেনের পরিচালনায় এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লেবানন আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ দুলা মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজ মিয়া, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক শিপন মিয়া, মহিলা সম্পাদিকা আসমা আক্তার।

এছাড়া আরো উপস্থিত ছিলেন, সামাজিক সংগঠন প্রবাসী ভাইবোন সংগঠনের সভাপতি মোঃ আতাউর রহমান, সংগঠনের সদস্য গোলাম নবী, জাকির, ইমরান, রহিম, মালু, মনা, রাব্বি, ফিরোজ, তামিম, ইসমাইল, ইসলাম, মিনু, রুমা, রিনা, শিমা, মুন্নি, আলেয়া সাহারা, জুতি, মরিয়ম, তানিয়া, রাসেদা, নাছরিন, পপি প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, জনবান্ধব রাষ্ট্রদূত আব্দুল মোতালেব সরকার রাষ্ট্রদূত হিসেবে আরো অনেকদিন আমাদের মাঝে থাকবে এটাই প্রত্যাশা। মেয়াদকাল শেষ হয়ে গেলেও প্রবাসীদের সুবিধার্থে জনবান্ধব রাষ্ট্রদূতকে লেবাননে রাখতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি জোর দাবী জানান।

আলোচনা সভা শেষে লেবানন শিল্পীগোষ্ঠীর পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

February 2018
M T W T F S S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728  
আরও পড়ুন