১লা অক্টোবর, ২০২২ ইং | ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

EN

লেবাননে ‘মহান বিজয় দিবস’ উপলক্ষে তারাব্লুস, ত্রিপলি বিএনপি শাখা কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধা অনুষ্ঠিত!

বার্তা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১১:৩৫ অপরাহ্ণ , ২৫ ডিসেম্বর ২০১৭, সোমবার , পোষ্ট করা হয়েছে 5 years আগে

লেবানন থেকে জহির রায়হান : বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি লেবাননের কেন্দ্রীয় কমিটির অন্তর্ভূক্ত তারাব্লুস, ত্রিপলির নবগঠিত শাখা কমিটির উদ্দ্যোগে জাতীয় “মহান বিজয় দিবস ২০১৭” উপলক্ষে এক অভিষেক অনুষ্ঠান, আলোচনা সভা ও মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক সন্ধা অনুষ্ঠিত হয়।

গত রবিবার (২৪ ডিসেম্বর) লেবাননের ত্রিপলির মালাব তাকওয়া জেহরিয়ার অডিটোরিয়ামে এ অনুষ্ঠানটি পালিত হয়।

তারাব্লুস, ত্রিপলির বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও সমাজ সেবক এনায়েত উল্লাহ এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির সভাপতি মোঃ মফিজুল ইসলাম (বাবু)। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন, লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ হাবিবুর রহমান (হাবিব)।

বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন, লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির উপদেষ্টা সদস্য ও সাবেক সভাপতি মোঃ মানিক মোল্লা, লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সভাপতি মোঃ শাহাদত হোসেন, লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ মুজিবর রহমান (মুজিব), লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির প্রচার সম্পাদক মোঃ ইকবাল হোসেন, লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির অঙ্গ সহযোগী সংগঠন যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল করিম, লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির অন্তর্ভূত আলবস্তা শাখা কমিটির সভাপতি মোঃ সোহেল মিয়া, আলবস্তা শাখা কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ মাসুদ, আলবস্তা শাখা কমিটির সহ-সভাপতি মোঃ ফারুক, আলবস্তা শাখা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ সেলিম প্রমুখ।

অনুষ্ঠানটি শুরু হয় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত পাঠ করেন তারাব্লুস, ত্রিপলি শাখা কমিটির ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা মোঃ ইলিয়াস মিয়া। তারপর সকলেই নিজ নিজ কণ্ঠে একই সুরে বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত গেয়ে উঠেন এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান সহ ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে সকল শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক সহ সকল বিশেষ অতিথিবৃন্দদেরকে ফুল দিয়ে বরণ করেন তারাব্লুস, ত্রিপলি শাখা কমিটির নেতৃবৃন্দগণ। পরে লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির অন্তর্ভূক্ত তারাব্লুস, ত্রিপলির নবগঠিত ৪১ সদস্য বিশিষ্ট শাখা কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়। লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির সভাপতি মো: মফিজুল ইসলাম (বাবু) অভিষেক অনুষ্ঠানে আনুষ্ঠানিক ঘোষণার মাধ্যমে এ অনুমোদন দেন। তিঁনি নবগঠিত কমিটির সকল নেতৃবৃন্দদেরকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি লেবানন কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে অভিনন্দন জানান।

তারাব্লুস, ত্রিপলি শাখা কমিটির সহ-সভাপতি গাজী ওমর ফারুকের সঞ্চালণায় উক্ত অভিষেক অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন, তাররাব্লুস, ত্রিপলি শাখা কমিটির সাধারন সম্পাদক মো: সফিকুল ইসলাম (সফিক), বক্তব্য রাখেন তারাব্লুস ত্রিপলি শাখা কমিটির সভাপতি আলাউদ্দিন সরদার,শাখা কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি মো: দেলোয়ার, শাখা কমিটির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক (১) মো: নাঈম, শাখা কমিটির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক (২) মো: লাল চাঁদ, শাখা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ জোবায়ের, শাখা কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক (১) মো: জুনায়েদ, শাখা কমিটির সহ-সাংগঠনিক (২) মো: আনিচ, শাখা কমিটির দপ্তর সম্পাদক মো: মহিউদ্দন, শাখা কমিটির অর্থ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান, শাখা কমিটির প্রচার সম্পাদক মো: উজ্জ্বল, শাখা কমিটির ক্রিয়া সম্পাদক সাজারুল ইসলাম সুমন, শাখা কমিটির তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক মো: মানিক, শাখা কমিটির সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মো: সুমন, শাখা কমিটির মহিলা সম্পাদিকা হাফিজা বেগম।

উক্ত অভিষেক অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির অঙ্গ সহযোগী সংগঠন যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল করিম, লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির প্রচার সম্পাদক মো: ইকবাল হোসেন, লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মো: মুজিবর রহমান (মুজিব), লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সভাপতি মো: শাহাদাৎ হোসেন, লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির উপদেষ্টা সদস্য ও সাবেক সভাপতি মানিক মোল্লা, লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ হাবিবুর রহমান হাবিব, লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির সভাপতি মোঃ মফিজুল ইসলাম (বাবু) এবং সমাপনী বক্তব্য রাখেন অভিষেক অনুষ্ঠানের সভাপতি এনায়েত উল্লাহ।

উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে লেবানন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মোঃ মফিজুল ইসলাম (বাবু) বলেন, ১৬ই ডিসেম্বর বাঙালি জাতির একটি ঐতিহাসিক বিজয়ের দিন। তাই এ দিনটিকে রাষ্ট্রীয়ভাবে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করা হয়। এসময় তিঁনি শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান সহ সকল শহীদদের রূহের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন। তিঁনি বলেন, বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নামে সৌদিআরবে মানি লন্ডারিং এর যে অপবাদ দেওয়া হয়েছে তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত, মিথ্যা,বানোয়াট এবং ভিত্তিহীন। এতে বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়েছে বলেও তিঁনি মন্তব্য করেন।
তিঁনি আরো বলেন, ৯০ এর দশকে বেগম জিয়ার নেতৃত্বে অসহযোগ গণ আন্দোলনের মাধ্যমে যেমন করে স্বৈরাচারী সরকারের পতন ঘটানো হয়েছিল ঠিক তেমনিভাবে এ অবৈধ সরকারেরও পতন ঘটবে। এজন্য বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের দিকনির্দেশনায় দলীয় যেকোন কর্মসূচীতে সকল নেতাকর্মীদেরকে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করার জন্য উদাত্ত আহ্বান করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে লেবানন কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ জাকির হোসেন বলেন, যাঁদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে আজ আমরা একটি স্বাধীন ভূ-খণ্ড পেয়েছি, বাংলাদেশ নামে একটি দেশ পেয়েছি, লাল-সবুজের পতাকা পেয়েছি তাঁদের ঋৃণ কোনদিনও শোধ হবার নয়। আজ এই মহান বিজয়ের মাসে তাঁদেরকে আমরা গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি এবং শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান সহ সকল শহীদদের আত্মার রূহের মাগফেরাত কামনা করছি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির উপদেষ্টা সদস্য ও সাবেক সভাপতি মানিক মোল্লা বলেন, ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে যে বিজয় আমরা অর্জন করেছি তা যতটা আনন্দের ঠিক ততটাই বেদনার। বিজয় আমরা ছিনিয়ে এনেছি ঠিকই কিন্তু হারিয়েছি ৩০ লক্ষ শহীদদের তাজা প্রাণ, ২ লক্ষ মা-বোনদের ইজ্জত। তাই এ দিবসটিকে আমরা রাষ্ট্রীয়ভাবে পালন করে থাকি। লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির অন্তর্ভূক্ত তারাব্লুস, ত্রিপলি শাখা কমিটি তথা সকল নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে তিঁনি বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান এর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে বেগম জিয়ার হাতকে শক্তিশালী এবং দলকে গতিশীল করতে দলের সিনিয়র জুনিয়র মেনে চলা এবং একে অপরের প্রতি সম্মান দেখানো উচিত। পাশাপাশি লেবানন কেন্দ্রীয় বিএনপির ডাকে সাড়া দিয়ে আগামীর যে কোন অনুষ্ঠান, যে কোন কর্মসূচীতে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করার জন্য অঙ্গ সহযোগী সংগঠনসহ লেবানন কেন্দ্রীয় কমিটির অন্তর্ভুক্ত সকল শাখা কমিটির নেতাকর্মীদের প্রতি উদাত্ত আহবান করেন। এছাড়া, এত সুন্দর অভিষেক অনুষ্ঠান উপহার দেওয়ার জন্য তারাব্লুস, ত্রিপলি শাখা কমিটিকে তিঁনি আন্তরিকভাবে অভিনন্দন জ্ঞাপন করেন। তিঁনি আরো বলেন, ১৯৯৮ সালে লেবাননে বিএনপির আত্মপ্রকাশ ঘটলেও তা ২০১৭ সালের চলতি বছরে সেটি বাস্তবায়িত হয়। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত ১৩৮ সদস্য বিশিষ্ট লেবানন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির অনুমোদন দেন। যা সত্যিই আমাদের পরম পাওয়া এবং তা সম্ভব হয়েছে শুধুমাত্র বর্তমান সভাপতির জন্যই। এজন্য তিঁনি তাঁকে আন্তরিক অভিনন্দন জানান।

তারপর বক্তারা একে একে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস তুলে ধরেন শ্রোতাদর্শকদের মাঝে।

অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে একটি ‘নাটক’ পরিবেশন করা হয়। নাটকটির নাম ‘যৌতুক নিয়ে বাড়াবাড়ি’। তারাব্লুুস ত্রিপলি শাখা কমিটির সাংস্কৃতিক সম্পাদক ও সহ-সাংস্কৃতিক সম্পাদকের সঞ্চালনায় নাটকটিতে অভিনয় করেন তারাব্লুস, ত্রিপলি শাখা কমিটির সদস্যবৃন্দরা।

 

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

December 2017
M T W T F S S
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728293031
আরও পড়ুন