১লা অক্টোবর, ২০২২ ইং | ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

EN

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কোন ভাবেই বন্ধ হচ্ছেনা হিজড়া আতংক

বার্তা সম্পাদক

প্রকাশিত: ১২:৪২ অপরাহ্ণ , ১১ মার্চ ২০১৭, শনিবার , পোষ্ট করা হয়েছে 6 years আগে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিভিন্ন স্থানে প্রতি দিন হিজড়াদের আক্রমণের শিকার হচ্ছে ভদ্র লোকেরা। এই সব হিজরারা সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দল বেধে মানুষের বিভিন্ন অঙ্গভঙ্গির মাধ্যমে মান-সম্মান নষ্ট করে থাকে।সম্প্রীতি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বেশ কিছু হিজরাকে বিভিন্ন ট্রেনিং দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তাদের অত্যাচারতো কোনভাবেই কমছেনা বলে মনে করেন ভুক্তভোগীরা।
১০ই এপ্রিল  শুক্রবার দুপুরে পৈরতলা রেলক্রংসিয়ে দেখা যায় তাদের একটি সংগবদ্ধ দল নতুন জামাইয়ের একটি গাড়ি আটক করে মোটা অংকের টাঁকা দাবি করে। টাঁকা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করলে তারা তাদের পড়নের কাপড় খোলে নতুন জামাই কে তাদের সাজানো গাড়ি থেকে নামিয়ে ফেলার চেষ্টা করে। এমন কি রাস্তার উপর কাপড় চোপর খোলে নাচানাচি শুরু করে সম্মানের ভয়ে বাধ্য হয়ে  হয়ে টাঁকা দিতে হয়।
প্রতিটি নতুন জামাইয়ের গাড়ি থেকে তাদের কে ১০০০ টাঁকা শুরু করে সব্বোর্চ ৫০০০হাজার টাকা দেওয়ার পর তাদের নিকট থেকে গাড়ি  ছাড় পায়। এছাড়াও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরাইল  বিশ্বরোড মোড়, শাহবাজপুর, চান্দুরাও সাতবর্গ এলাকায় তাদের দলবল সংর্ঘবদ্ধ   ভাবে সাধারন মানুষকেও হয়রানি করে থাকে। তারা যে শুধু নতুন জামাইয়ের গাড়ি আটক করে তাহাই নয় তাদের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছে না সাধারন মানুষও। তাদের কেউ কোন ধরনের উপদেশ মূলক কথা বার্তা বললে তারা খোলা রাস্তায় উলঙ্গ হয়ে নাচানাচি করে। এছাড়াও বাস কিংবা সি এন জি যোগে কোথাও যাতায়াত করার সময় তাদের আচার আচরণে অন্য সব যাত্রীরা হচ্ছে নাজেহাল। এরা এতই খারাপ আচরণ করে তাদের নিকট থেকে মান সম্মান নিয়ে ফিরে আসা খুবই বিপদজনক। এদের বিরুদ্বে আইন গত ভাবে সাময়িক একটা কিছু করা বেশি প্রয়োজন বলে ভুক্ত ভোগীরা মনে করেন। সাধারণত যে কোন বিয়ের অনুষ্ঠানে সব সময় বর কিংবা কনের নিকট আত্মীয় স্বজন আসে আর এই হিজড়াদের এমন আচরণে সবাই অসম্মানিত হয়। তাই মানু্ষের সম্মানের স্বার্থে হিজরাদেরকে আইন গত ভাবে সাময়িক দমন করা দরকার বলে মনে করছেন সমাজের সচেতন মহল।
নতুবা তাদের জন্য বিকল্প একটা কিছু করা খুবই দরকার। যাতে তারা চলন্ত পথেকোন লোকজনকে টাকার জন্য আটক  বা গাড়ি থামিয়ে টাকা না চাইতে পারে। দেশে  সবার বেলা যেহেতু আইন আছে তাহলে তারাও তো মানুষ তারা কেন আইনের বাইরে?

আপনার মন্তব্য লিখুন

আর্কাইভ

March 2017
M T W T F S S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
2728293031  
আরও পড়ুন